1. admin@dainikcoxsbazardiganto.com : Cox Bazar Dainik :
  2. newsiqbalcox@gmail.com : Md Iqbal : Md Iqbal
September 25, 2020, 6:31 pm
শিরোনাম :
কক্সবাজার নাজিরারটেক শ্রমজীবি কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতির নার্বাচন সম্পন্ন, চকরিয়ার বদরখালীতে কৃষকলীগ নেতার উপর নজরুল বাহিনীর বর্বর হামলা রামুতে শাশুড় বাড়িতে জামাইকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ রাক্ষুস‌ে সাংবাদিক‌দের তা‌লিকা হ‌চ্ছে: কক্সবাজারে ‌বিএমএসএফ নেতৃবৃন্দ চকরিয়া প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনী কমিটি গঠিত জয়েন্ট বিজনেস সেন্টার ২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন উখিয়ায় ‘দুই টাকায় শিক্ষা’ ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা কমিটি গঠিত হেফাজত আমির আল্লামা শাহ শফী’র ইন্তেকাল কুতুবদিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান কুতুবদিয়ায় চেয়ারম্যানদের সাথে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৩৫৬,৭৬৭
সুস্থ
২৬৭,০২৪
মৃত্যু
৫,০৯৩

সর্বশেষ

আক্রান্ত
১,৩৮৩
সুস্থ
১,৯৩২
মৃত্যু
২১
সূত্র: আইইডিসিআর

কক্সবাজার শহরে জমি জবর দখল ও মাদকের টাকায় অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়েছে নান্নু

  • Update Time : Sunday, August 9, 2020
  • 66 Time View

রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে মিলবে চাঞ্চল্যকর গোপন তথ্য!

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
কক্সবাজারের প্রাণকেন্দ্র বাঁকখালী নদী দিন দিন গিলে খাচ্ছে অবৈধ দখলদাররা। কিছু চিহ্নিত ভূমিদস্যুদের পরিকল্পিত দখলের ফলে বাকখালী নদী গতিপথ এখন প্রতিনিয়ত সংকুচিত হয়ে আসছে। প্রতিযোগিতার মাধ্যমে অবৈধ দখল অব্যাহত রাখায় অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়েছে । সরকারী খাস জমি,বন্দোবস্তি জমি,ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি জবর দখল যেন থেমে নেই। ভুমিদস্যুদের করালগ্রাস থেকে কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছেনা বাকখালী খাল। বাকখালী গিলে খাওয়া এক ভুমি দস্যুর নাম ফরিদুল হক নান্নু।
জানা যায়, কক্সবাজার পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের আওতাধীন টেকপাড়া এলাকায় আবু সাঈদ কোম্পানির বরফ কলের পশ্চিমপাশে ১০ বিঘার চেয়ে বেশি অবৈধ স্থাপনা করে গড়ে তুলেছে রমরমা অবৈধ বানিজ্য। টেকপাড়ায় এলাকার বাসিন্দা নুরুল হক কোম্পানির ছেলে ফরিদুল হক নান্নুর বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা ও জমি দখলের অভিযোগ রয়েছে। জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা বিক্রির মাধ্যমে অর্জন করেছে বিশাল অঙ্কের টাকা, সেই সাথে গড়ে তুলেছে তেলের পাম্প। জনশ্রুতি রয়েছে, নদী ও সাগরের কুল ঘেষে স্থাপিত পাম্প নাকি মাদক পাচারের আখড়া! যার মধ্যমে প্রতিদিন আয় করছে বিশাল অংকের অবৈধ সম্পদ।
এলাকাবাসীর দেয়া তথ্যমতে, ফরিদুল হক নান্নু বিভিন্নভাবে অনৈতিক ব্যবসার মাধ্যমে ত্রাস সৃষ্টি করে মানুষকে ভয় হুমকির মধ্যে রেখেছে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার গুরুতর অভিযোগ তুলেছে অত্র এলাকার সচেতন মহল। দখলকৃত সেই জায়গায় বিভিন্ন মানুষকে পৃথক পৃথকভাবে প্লট বিক্রি করে হাতিয়ে নিয়েছে অবৈধ সম্পদ। বর্তমানে ওই দখলকৃত জায়গায় গড়ে তুলেছে বিভিন্ন ভাড়াবাসা ও দোকানপাটসহ অসংখ্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।  ঙ্গ ২য় পৃষ্ঠায় দেখুন ¿
শহরে জমি জবর দখল ও মাদকের
তার অস্ত্র ও ভাড়াটে বাহিনীর রাম রাজতের ফলে অত্র এলাকার কেউ মুখ খুলে কিছু বলার সাহস রাখছে না। কেউ প্রতিবাদ করতে গেলেই প্রতিহিংসার শিকার হতে হয়।
সূত্র মতে, দখলকৃত সেই জায়গায় প্রতি রাত্রে গড়ে উঠে রমরমা বাণিজ্য। ইয়াবা খালাসের মূল পয়েন্ট হিসেবেও এই জায়গাটি ব্যবহৃত হয়। অত্র এলাকায় শহরের চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি, ছিনতাইকারী ও সন্ত্রাসীদের জলসায় রূপান্তর হয় প্রতি রাত্রে। পুলিশ প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকলেও অভিযানের পর আবার গড়ে উঠে জুয়া নামক “ক্যাসিনোর” আসর। আইনকে তোয়াক্কা না করে সন্ত্রাসীদের আখড়ায় পরিণত হয় তার দখলকৃত এলাকা। দফায় দফায় কয়েকবার প্রশাসনিক অভিযান পরিচালনা করা হলেও আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দখলকৃত জায়গা বিক্রি চলছে ? অবাধেই। ইয়াবার ট্রানজিট পয়েন্ট খ্যাত ওই এলাকায় তেল বিক্রির মাধ্যমকে শো’অফ করে ট্রলারে করে মায়ানমার থেকে ইয়াবা এনে রমরমা বাণিজ্য করছে বলে জানান স্থানীয়রা। তার আস্তানা খ্যাত জায়গায় তেল বিক্রির আড়ালেই চলছে মাদক ব্যবসা। এলাকাবাসী জানান, যুবসমাজকে ধ্বংস করে মরণনেশা ইয়াবা থেকে সমাজকে রক্ষার্থে এলাকায় আবারো অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি সন্ত্রাসীদের আখড়ায় যেন নষ্ট করে দেয়া হয়। সেই দাবি তুলেন অত্র এলাকার সচেতন মহল।
অপরদিকে, একই এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ রিদওয়ানের পুত্র মোঃ হায়দার কক্সবাজার সদর মডেল থানায় ফরিদুল হক নান্নুর বিরুদ্ধে ছিনতাই ও চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে এজাহার দায়ের করেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। অভিযুক্ত নান্নু আমার কাছ থেকে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদা দাবি করে আসছিল, আমি চাঁদা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় আমাকে রাস্তায় অতর্কিত তিন থেকে চারজন অজ্ঞাত সহ এলোপাতাড়ি মারধর করে। আমার কাছ থেকে নগদ ৩৫ হাজার টাকা, মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। এ বিষয়ে আমি থানায় অবহিত করেছি।
উল্লেখ্য, মৃত নুরুল হক কোম্পানির ছেলে কক্সবাজারের ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ভূমিদস্যু ফরিদুল হক নান্নু দৈনিক কক্সবাজার একাত্তর পত্রিকা অফিসে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছে। শহরের স্বতেন মহলের মতে তাকে রিমান্ডে  এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে।
এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক কাঞ্চন দাস বলেন, শহীদুল হক নান্নুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ রয়েছে। দৈনিক কক্সবাজার ৭১ পত্রিকা অফিসে ভাঙচুর ও হামলার ঘটনায় তাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। জামিনে বের হলে তার বিরুদ্ধে এই বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে ওসি স্যারের পরামর্শক্রমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুল আফসার বলেন, ফরিদুল হক নান্নুর বিরুদ্ধে এর আগেও আমরা বিভিন্ন অভিযোগ পেয়েছিলাম, প্রশাসনিকভাবে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছিল, বর্তমান সময়ে যদি অবৈধ কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
প্রসঙ্গত দৈনিক কক্সবাজার ৭১ পত্রিকা অফিসে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে তিনি জেলহাজতে রয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

More News Of This Category
  • এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া  অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Customized By Coxmultimedia
%d bloggers like this: