1. admin@dainikcoxsbazardiganto.com : Cox Bazar Dainik :
  2. newsiqbalcox@gmail.com : Md Iqbal : Md Iqbal
August 11, 2020, 9:34 am
শিরোনাম :
পেকুয়ার বর্ধিত সভায় বক্তারা, নেতাদের  বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, হামলা আ’লীগ মেনে নেবে না কক্সবাজার শহরে জমি জবর দখল ও মাদকের টাকায় অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়েছে নান্নু পেকুয়ার আটটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বেঞ্চ, চেয়ার ও টেবিল বিতরণ কুতুবদিয়ায় সার ডিলার হাশেমের ১০ লাখ টাকা ডাকাতি চকরিয়া বদরখালীতে জাতীয় মানবাধিকার পরিবেশ সোসাইটির অভিষেক সম্পন্ন চকরিয়ায় ছুরিকাঘাতে কলেজ ছাত্র গুরুতর আহত পেকুয়ার টইটংয়ে চলছে প্রকাশ্যে মদ ও জোয়ার আসর চকরিয়া বদরখালীতে মানবাধিকার কর্মী রাসেলের সহযোগিতায় রাস্তা সংস্কার মাদক নির্মূলে গণমাধ্যমকর্মীর কিছু ভাবনা ইয়াবা তদবিরে সাড়া না দেওয়ায় দৈনিক কক্সবাজার ৭১ পত্রিকা অফিসে হামলা ও ভাংচুর,

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
২৬৩,৪৫০
সুস্থ
১৫১,৯৬৯
মৃত্যু
৩,৪৭১

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,৯৯৬
সুস্থ
১,৫৩৫
মৃত্যু
৩৩
সূত্র: আইইডিসিআর

নান্নুকে হত্যা সন্দেহে স্ত্রী-শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা l কক্সবাজার দিগন্ত

  • Update Time : Tuesday, June 30, 2020
  • 80 Time View

ঢাকা: আগুনে পুড়ে নিহত দৈনিক যুগান্তরের অপরাধ বিভাগের প্রধান মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুকে হত্যার অভিযোগে তার স্ত্রী শাহীনা আহমেদ পল্লবী ও শাশুড়ি শান্তা পারভেজের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুন) দুপুরে রাজধানীর বাড্ডা থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের করেন সাংবাদিক নান্নুর বড় ভাই মো. নজরুল ইসলাম খোকন।

এ বিষয়ে বাড্ডা থানার ওসি মো. পারভেজ ইসলাম জানান, সাংবাদিক নান্নুর মৃত্যুর রহস্য উদ্ঘাটনে এর আগে গঠন করা গুলশান বিভাগ পুলিশের তদন্ত কমিটি কাজ করছে। এছাড়া, ফায়ার সার্ভিস, সিআইডি ও তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ আলাদা আলাদা তদন্ত করছে। পুলিশের পক্ষ থেকে প্রত্যেকটি তদন্ত কমিটির সঙ্গে সমন্বয় করে নান্নুর মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

তিনি জানান, আগুনে পুড়ে নান্নুর মৃত্যুর পর স্ত্রী পল্লবী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছিলেন। তবে সোমবার (২৯ জুন) সাংবাদিক নান্নুর আগুনের পুড়ে যাওয়া ও মৃত্যুকে হত্যা বলে দাবি করে বড় ভাই নজরুল ইসলাম খোকন মামলাটি দায়ের করলেন। আমরা এ মামলাটি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মামলার এজাহারে বাদী নজরুল ইসলাম খোকন উল্লেখ করেন, আমার ছোট ভাই মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু তার স্ত্রী শাহিনা হোসেন পল্লবীর সাথে আফতাবনগরের জহিরুল ইসলাম সিটির ৩ নম্বর সড়কের বি ব্লকের ৪৪/৪৬ নম্বর বাসার দশম তলায় বসবাস করতো। গত ১১ জুন রাত সাড়ে ৩টার সময় আমার ছোটভাই মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু রহস্যজনকভাবে অগ্নিদগ্ধ হয়। গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের আইসিইউতে ভর্তি করা হয় সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরের দিন সকাল ৮টায় মারা যায়।

এজাহারে তিনি আরো বলেন, ঘটনার সময় আমি নড়াইলের কলোরায় নিজ গ্রামের বাড়িতে অবস্থান করছিলাম, আমি আমার মেজো ভগ্নিপতি আনসার হোসেনের কাছ থেকে নান্নুর অগ্নিদগ্ধের খবর পাই। এও জানতে পারি নান্নুর অগ্নিদগ্ধ হওয়ার ঘটনাটি রহস্যজনক। ঘটনার সময় স্ত্রী ছাড়াও নান্নুর শাশুড়ি শান্তা পারভেজও ওই বাসায় অবস্থান করছিলেন। আমরা আরো জানতে পারি নান্নু গত ১১ জুন রাত ১টার দিকে বাসায় ফেরে। বাসায় ফেরার পর স্ত্রী পল্লবীর সাথে ঝগড়া হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই বাসায় আগুন লাগে। নান্নু দগ্ধ হয়। নিজে পাইপ এনে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। তার স্ত্রী ও শাশুড়ি আগুন নেভানোর চেষ্টা করে নাই এবং নান্নু নিজেই ১০ তলা থেকে হেঁটে নিচে নামে। সেখানে আশপাশের ফ্লাট মালিকরা নান্নুকে হাসপাতালে নেয়।

তার স্ত্রী পল্লবী অনেক পরে হাসপাতালে যান। চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিন পর নান্নু মৃত্যুবরণ করে। আমার মেজো ভাই ইকবাল হোসেন বাবলু ও ভাগ্নে সাজ্জাদ হোসেন টিপু একটি ভাড়া গাড়িতে ঢাকায় আসে। তারা হাসপাতালে যেতে চাইলে পল্লবী ও তার অফিসের জনৈক সিইও তাদেরকে হাসপাতালে যেতে নিষেধ করেন। পরে তারা হাসপাতালে না গিয়ে বাসায় যান।

নান্নু মারা যাওয়ার পর আমাদেরকে না জানিয়ে তার স্ত্রী ও সেখানে উপস্থিত পল্লবী যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতো সেই প্রতিষ্ঠান সিইও পরিচয় দেয়া এক ব্যক্তি তার ব্যবহৃত একটি কালো রংয়ের পাজেরো গাড়িতে করে স্ত্রী পল্লবীর গ্রামের বাড়িতে যায়। ওই সিইও’র সহযোগিতায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই নান্নুর মরদেহ পল্লবী তার বাড়ি যশোর জেলার বাঘারপাড়া থানার ভাঙ্গুরা গ্রামে দাফন করেন।

আমার মেজো ভাই ইকবাল হোসেন বাবলুসহ আত্মীয়-স্বজনরা লাশ দেখতে চাইলে তাদেরকে দেখতে দেয়া হয়নি। আমি লোক মারফত আরো জানতে পারি, নান্নু হাসপাতালে থাকার সময় তার স্ত্রী পল্লবী মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে ভোর চারটার সময় স্যুপ খাওয়ায় নান্নুকে। আর সেই স্যুপ পল্লবীর অফিসের জনৈক সিইও সাহেবের বাসা থেকে রান্না করে আনা বলে জানতে পেরেছি।

উল্লেখ্য, আফতাবনগরের জহিরুল ইসলাম সিটির ৩ নম্বর সড়কের বি ব্লকের ৪৪/৪৬ নম্বর বাসার দশম তলায় স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করতেন সাংবাদিক নান্নু। শুক্রবার (১২ জুন) ভোর পৌনে ৪টার দিকে সেখানে রহস্যজনক আগুনে তিনি গুরুতর দগ্ধ হন।

সাংবাদিক নান্নুকে গুরুতর অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। শনিবার (১৩ জুন) সকাল ৮টা ২০ মিনিটে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে তার মৃত্যু হয়। ওই ঘটনায় তার স্ত্রী শাহীনা হোসেন পল্লবী বাদী হয়ে বাড্ডা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

More News Of This Category
  • এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া  অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Customized By Coxmultimedia
%d bloggers like this: